off

বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ে অনলাইন প্রশিক্ষণ

সিরাক-বাংলাদেশ এর উদ্যোগে Amplify Change  এর সহযোগীতায় ৬ এপ্রিল, ২০২১ তারিখে ‘প্রচেষ্টা-২’ প্রকল্পের মাধ্যমে ময়মনসিংহের ত্রিশাল উপজেলার বৈলর রহমানিয়া উচ্চ বিদ্যালয়, কালির বাজার স্কুল এন্ড কলেজ , ফাতেমা নগর উচ্চ বিদ্যালয়, আব্বাসিয়া ফাজিল মাদ্রাসা ও বর্মা কাচর ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্র-ছাত্রীদের নিয়ে জুম অ্যাপের মাধ্যমে ’বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ ও স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ক  অনলাইন প্রশিক্ষণ’ এর আয়োজন করা হয়। প্রশিক্ষণটিতে রিসোর্স পারসন হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ত্রিশাল উপজেলার মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জনাব মুক্তি রাণী রায় এবং প্রশিক্ষণ পরিচালনায় ছিলেন সিরাক-বাংলাদেশ এর প্রোগ্রাম ডিরেক্টর শাহীনা ইয়াসমিন ও প্রশিক্ষণ সহযোগীতায় ছিলেন প্রোগ্রাম অ্যাসোসিয়েট মাহমুদুল হক সুজন।

ত্রিশাল উপজেলার মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা জনাব মুক্তি রাণী রায় তাঁর বক্তব‌্যে বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে প্রশাসনের কার্যাবলী ও বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে প্রশাসনের কী কী পদক্ষেপ তা তুলে ধরেন!

সিরাক-বাংলাদেশের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর শাহীনা ইয়াসমিন তাঁর বক্তব্যে তিনি  সিরাক-বাংলাদেশের কার্যক্রম তুলে ধরেন এবং কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে ভ্রাতৃত্ববন্ধন গড়ার আহ্বান করেন।

দারিদ্রতা ছাড়াও বাল্যবিবাহের কারন কী কী এবং এর ক্ষতিকর দিকসহ এর প্রতিকারের উপায়গুলি ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে তুলে ধরেন সিরাক-বাংলাদেশের প্রোগ্রাম সহযোগী মাহমুদুল হক সুজন।

প্রাথমিক পর্যায়ে অনলাইন প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণকারী ছাত্র-ছাত্রীদের বাল্যবিবাহ সর্ম্পকে প্রয়োজনীয় তথ্য সংগ্রহের  জন্য একটি জরিপ করা হয়। পরবর্তিতে প্রশিক্ষণে সিরাক-বাংলাদেশ, ’প্রচেষ্টা-২’ প্রজেক্ট , ‘SERACNetwork’ অ্যাপ এর সংক্ষিপ্ত পরিচিতি, বাল্যবিবাহ সর্ম্পকিত জ্ঞান, দৃষ্টিভঙ্গি ও অনুশীলনের ধারণা যাচাই জরিপ, বাংলাদেশে বাল্যবিবাহের পরিস্থিতি, কারণ, ক্ষতিকর দিক, প্রতিরোধের  উপায়, বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ২০১৭ এবং বাল্যবিবাহ প্রতিরোধে প্রশাসন বরাবর চিঠি/আবেদনপত্র লেখার নিয়মাবলী ইত্যাদি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। পরিশেষে ছাত্র-ছাত্রীদের বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ বিষয়ে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেয়া হয়।

About the Author